মঙ্গলবার ৩১ জানুয়ারি ২০২৩ ১৭ মাঘ ১৪২৯

ডিভোর্সের ধাক্কায় যেভাবে সামলাবেন নিজেকে
ডেল্টা টাইমস্ ডেস্ক:
প্রকাশ: শনিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২৩, ২:৪২ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ডিভোর্সের ধাক্কায় যেভাবে সামলাবেন নিজেকে

ডিভোর্সের ধাক্কায় যেভাবে সামলাবেন নিজেকে

বিবাহবিচ্ছেদ বা বিচ্ছেদের পর একজন মানুষকে নানা কিছুর সঙ্গে খাপ খাওয়াতে হয়। এটা অনেক বড় একটি ব্যাপার। নিজে একা একা পথ চলাটা আবার শিখতে হয়। সেই পথ চলায় বাধা হয় নানা মানুষ। এ ছাড়া বিচ্ছেদের কষ্টটাও তখন বুকে নিয়ে ঘুরে বেড়াতে হয়। হুট করে হয়ে গেলেন দুইজন থেকে একজন। এই অভ্যাসটাও তখন করতে হয়। তাই কষ্ট হলেও নিজেকে ভালো রাখা উচিত। কথা না বাড়িয়ে চলুন জেনে নিই পুরো বিষয়টি।

১. নীরবতাকে আলিঙ্গন করতে হবে। বিচ্ছেদের অপর নাম হতে পারে নীরবতা। একটা বাড়িতে দুইজন থাকছেন বা ছেলেমেয়েসহ থাকছেন। সেখানে বিচ্ছেদের পরে নীরবতা আসবেই। এই নীরবতাকে আলিঙ্গন করে নিতে হবে। এ ছাড়া গবেষণায়ও জানা গেছে, নীরবতা আপনার মানসিক শান্তি এবং সুস্থতার জন্য বেশ কার্যকর। নীরবতাকে ভয় করলে চলবে না। কথোপকথনের মধ্যে এই দীর্ঘ নিস্তব্ধতা মানুষের চারপাশে, বিশেষ করে আপনার বাচ্চাদের সময়কে আরো আনন্দদায়ক করে তোলে।

২. নিজের জন্য একটি রুটিন তৈরি করে ফেলুন। রুটিন শব্দটা অনেকের পছন্দ নয়। কিন্তু একা জীবনযাপনের জন্য এটা দরকার। একা থাকার সঙ্গে নিজের স্বাধীনতা জড়িত। কিন্তু সেই স্বাধীনতা প্রায়শই আপনার ঘর থেকে শুরু করে আপনার দায়িত্ব, এমনকি আপনার শরীর পর্যন্ত সব কিছুকে অবহেলা করে। আগামীকালের জন্য কিছু কাজ রাখা মানে এই কাজগুলো জমা হলো। সেই কাজের পাহাড় আপনার নতুন অবস্থানকে বিশৃঙ্খলায় ফেলে দেবে না।মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর চাপ সৃষ্টি করবে। তাই বসে একটি তালিকা করে ফেলুন। পুরো সপ্তাতে কী কী জটিল কাজগুলো করতে হবে লিখে ফেলুন।

৩. প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে নিজের বিছানা সুন্দর করে গুছিয়ে রাখতে পারেন। বিছানা গুছানো আপনার রুটিনের একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ। এটা শুনতে হাস্যকর লাগলেও কখনো কখনো এই ছোট জিনিসগুলোই  ইতিবাচক দিকে নিয়ে যেতে সাহায্য করে।

৪. আপনি যদি বিবাহবিচ্ছেদের পর একা থাকতে শুরু করেন, তবে কী ঘটেছে বা কী ঘটত সেটা নিয়ে বেশি সময় নষ্ট করতে যাবেন না। এ ছাড়া অপ্রয়োজনীয় জিনিসে সময় এবং অর্থ ব্যয় করতে যাবেন না। প্রথমে প্রয়োজনীয় জিনিসগুলোতে ফোকাস করুন। একাকী জীবনযাপন আসলে কেমন হয় সেই বিষয়ে পড়াশোনা করুন।
 
৫. বিভিন্ন রকমের নতুন জিনিস শিখতে চেষ্টা করুন। সেটা রান্নাও হতে পারে। নিজের কাজেও মন দিতে হবে। হেরে গেছি বলে বসে থাকলে হবে না।

৬. ‘হ্যাঁ’ শব্দটা বেশি বেশি বলতে হবে। বিচ্ছেদের পর জীবনটা তখন ‘না’ শব্দে ভরে যায়। দিনের পর দিন নিজেকে এক ঘরে আটকে রাখবেন না। পরিবার, বন্ধু- সবার সঙ্গে বেশি বেশি মেলামেশা করুন।  নিজেকে এমন পরিস্থিতিতে রাখুন, যাতে অন্য লোকদের সঙ্গে কথা বলার প্রয়োজন পড়ে।

৭. এটা চিন্তা করে বসে থাকবেন না যে কেউ না কেউ প্রতিদিন আপনাকে দেখতে আসবে। উল্টো তাদের নিজের বাসায় দাওয়াত দিন। সময় কাটান। নিজেকে ভালো রাখুন।

৮. সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কথা হলো, একা থাকা মানে বিশাল এক শাস্তি এটা না ভাবা। অতিরিক্ত দায়িত্ব, নীরবতা এবং আপনার পরিবারের হঠাৎ অনুপস্থিতিতে অভ্যস্ত হতে সময় লাগবে। কিন্তু জীবনের সব কিছুর মতো সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সহজ হয়ে যাবে।




ডেল্টা টাইমস্/সিআর/এমই

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
  এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ  
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো. আমিনুর রহমান
প্রকাশক কর্তৃক ৩৭/২ জামান টাওয়ার (লেভেল ১৪), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত
এবং বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস ২১৯ ফকিরাপুল, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত।

ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো. আমিনুর রহমান
প্রকাশক কর্তৃক ৩৭/২ জামান টাওয়ার (লেভেল ১৪), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত
এবং বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস ২১৯ ফকিরাপুল, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত।
ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]