মঙ্গলবার ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ২৩ মাঘ ১৪২৯

চাঁদপুরে ৬ জনের এইডস শনাক্ত
ডেল্টা টাইমস্ ডেস্ক:
প্রকাশ: বুধবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২২, ৪:১৩ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

চাঁদপুরে ৬ জনের এইডস শনাক্ত

চাঁদপুরে ৬ জনের এইডস শনাক্ত

আড়াইশ’ শয্যাবিশিষ্ট চাঁদপুর সরকারি জেনারেল (সদর) হাসপাতালে দুই বছর ধরে চলছে বিনামূল্যে এইচআইভি পরীক্ষা। রক্ত ও মুখের লালা সংগ্রহ করে এই পরীক্ষাটি করা হয়। সদর হাসপাতালে থাকা এই এইচটিসি, এআরটি সেন্টার থেকে এ পর্যন্ত অনেকেই বিনামূল্য এই সেবা গ্রহণ করেছেন।

এইচআইভি পরীক্ষা করে অনেক রোগীই শনাক্ত হয়েছেন এবং চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন। প্রতিদিন গড়ে ৮-১০ জন ব্যক্তি হাসপাতালের এই সেবামূলক প্রতিষ্ঠানে গিয়ে এইচআইভি পরীক্ষা করাচ্ছেন।

জানা যায়, ২০২০ সালে একযোগে দেশের ২৩টি জেলা সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে এইচটিসি এআরটি সেন্টার চালু করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। আর চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে এই সেবামূলক সেন্টারটি চালু করা হয় ২০২০ সালের মার্চ মাসে। তারপর থেকেই এখানে রোগীদেরকে বিনামূল্যে এই সেবা সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে। প্রতিদিন এই সেবা সেন্টারে ৮ থেকে ১০ জন সেবা প্রার্থীরা এই সেবা গ্রহণ করে থাকেন। যেসব ব্যক্তি রোগ নির্ণয়ের জন্য এইচআইভি পরীক্ষা করাতে আসেন তাদের মুখের লালা এবং রক্ত পরীক্ষা করে দশ মিনিটের মধ্যেই তার রিপোর্ট প্রদান করা হয় বলে জানান দায়িত্বরতরা।

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল (সদর) হাসপাতালের নিচতলায় থাকা এইচটিসি এআরটি সেন্টারে মোট ৩ জন জনবল এটি পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছেন। এর মধ্যে সেবা সেন্টারের ফোকালপার্সন হিসেবে রয়েছেন হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল, কাউন্সিলর কাম এডমিনিস্ট্রেটর মোঃ হাবিবুল হক আখন্দ ও মেডিকেল টেকনোলজিস্ট সলেমান হোসেন।

তারা জানান, বাংলাদেশ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ এই বিনামূল্যের সেবা সেন্টারটি ২০২০ সালে মার্চ মাস থেকে চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে এটি চালু করা হয়।

এ পর্যন্ত এখানে সর্বমোট ২৯৮৭ জন ব্যক্তির রক্ত পরীক্ষা করা হয়। তার মধ্যে পজিটিভ রোগের সংখ্যা ৬ জন এবং নেগেটিভ ২৯৮১ জন।

তাদের আহ্বান বিদেশগামীরা যাতে বিদেশে যাওয়ার পূর্বে এবং প্রবাস থেকে আসা উপসর্গ থাকা লোকজন এই সেবা কেন্দ্রে এসে এইচআইভি পরীক্ষা করেন। বিশেষ করে মাদকাসক্ত, যৌনকর্মীরাও যাতে হাসপাতালে এসে এই সেবাটা গ্রহণ করেন এমনটাই আহ্বান তাদের।

যে জীবাণুর মাধামে এইডস হয় তাকে এইচআইভি বলা হয়। এইচআইভি (ঐওঠ) হলো, হিউম্যান ইমুনো ডিফিসিএনসি ভাইরাস। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলে রোগীর দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়।




ডেল্টা টাইমস্/সিআর/এমই

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
  এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ  
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো. আমিনুর রহমান
প্রকাশক কর্তৃক ৩৭/২ জামান টাওয়ার (লেভেল ১৪), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত
এবং বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস ২১৯ ফকিরাপুল, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত।

ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো. আমিনুর রহমান
প্রকাশক কর্তৃক ৩৭/২ জামান টাওয়ার (লেভেল ১৪), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত
এবং বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস ২১৯ ফকিরাপুল, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত।
ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]