সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বিশ্বে সবচেয়ে দীর্ঘ চুল নীলাংশীর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ডেল্টাটাইমস্, আপডেট : ১৯ জানুয়ারী ২০১৯

/ ফিচার
-ফাইল ছবি

নীলাংশী বলেন, “বিচ্ছিরিভাবে আমার চুল কেটেছিল সেবার। এতই রাগ আর বিরক্তি হয়েছিল যে আমি সিদ্ধান্ত নিই আর কখনই চুল কাটব না। তখন আমার বয়স ছিল মাত্র ৬। সেই থেকে দশ বছর পেরোল, চুল কাটিনি আমি।” কোমর অব্দি চুল, বা হাঁটু পেরোনো চুলের গল্প তো অনেক শুনেছেন। কিন্তু একেবারে গোড়ালি অব্দি চুল? দশ বছর আগে পার্লারে চুল কাটাতে গিয়ে বিচ্ছিরি হেয়ারকাট নিয়ে সমস্যায় পড়েছিলেন এক বছর ছয়ের শিশু। আজ বিশ্বের সব থেকে লম্বা চুলের অধিকারিণী ওই কিশোরীই গিনেস ওয়ার্ল্ডের খেতাব জয় করেছেন চুলের সৌজন্যেই। গুজরাটের বাসিন্দা নীলাংশী প্যাটেল খারাপ চুলকাটার ঘটনায় বিরক্ত হয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন জীবনে চুলই কাটবেন না আর। ষোড়শী এই কিশোরী বিশ্বে দীর্ঘতম চুলের জন্য গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড জিতেছেন। তাঁর চুলের দৈর্ঘ্য শুনে বাস্তবিকই স্তম্ভিত হয়ে যেতে হয়। ৫ ফুট ৭ ইঞ্চি মাপের চুল নিয়ে নীলাংশী যেন রূপকথার র‍্যাপুনজেল!নীলাংশিকে তাঁর বন্ধুরা ভালোবেসে র‍্যাপুনজেল বলেই ডাকেন। চুলের কীভাবে যত্ন নেন জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান সপ্তাহে একবার শ্যাম্পু করেন তিনি। “আমার মা আমাকে চুল আচড়াতে আর বাঁধতে সাহায্য করে,," জানান তিনি।নীলাংশী বলেন, “মানুষ মনে করেন যে আমার এত লম্বা চুল নিয়ে আমাকে নিশ্চয়ই অনেক সমস্যা পোহাতে হয়, কিন্তু আমার সত্যিই কোনও সমস্যা হয় না। আমি লম্বা চুল নিয়েই খেলাধুলাও করি, অন্য সব কাজও করি। আমার কোনও সমস্যাই হয় না। আমার চুল আমার জন্য লাকি চার্ম বলতে পারেন।”"আমি স্টাইল করতে হলে লম্বা বিনুনি করি বা উঁচু করে খোঁপা বাঁধি। যখন আমি কোনও অনুষ্ঠানে যাই, বা যখন আমি টেবিল টেনিস খেলি, তখন আমি আমার চুলগুলো মাথায় উঁচু করে খোঁপা করে নিই যাতে সমস্যা না হয়, আমার কাজের পক্ষে আরামদায়ক হয় তা।”