মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

পাঁচবিবিতে নেপিয়ার জাতের ঘাস চাষে আগ্রহ বাড়ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ডেল্টাটাইমস্, আপডেট : ৩১ অক্টোবর ২০১৯

/ কৃষি

প্রদীপ অধিকারী / পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) সংবাদদাতাঃ
জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের জমিতে গো খাদ্য হিসেবে পরিচিত নেপিয়ার ঘাস চাষ করে স্বাবলম্বির পথে এগিয়ে যাচ্ছে পাঁচবিবি উপজেলার অনেক কৃষক। সরজমিনে ঘুরে ও কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে নেপিয়ার ঘাস একটি লাভ জনক গো খাদ্য এবং গরুর জন্য এটি পুুষ্টিকর খাদ্য বিশেষ করে গবাদি পশুর জন্য। প্রায় সারা বছরই এ ঘাস চাষ হয়ে থাকে বাজারে এর চাহিদা ও রয়েছে ব্যাপক। পাঁচবিবি উপজেলার খোর্দ্দা গ্রামের ক্ষুদ্র এই নেপিয়ার ঘাস চাষি স্বপন জানান আমি পরিক্ষা মূলক সামান্য জমিতে নেপিয়ার ঘাস চাষ করে নিজ বাড়ির গো খাদ্যের চাহিদা মিটেও প্রতি মাসে বিপুল অংকের টাকার ঘাস বাজারে বিক্রয় করি, কিন্তু দেখা যায় বাজারে এ ঘাসের চাহিদা বেশী আমি (স্বপন) ঘাস চাষের পরিধি আরো বারিয়ে  বর্তমানে দেড় বিঘা জমিতে নেপিয়ার জাতের ঘাস চাষ করছি। কৃষক স্বপন আরো জানায় এই ঘাস চাষ করতে বেশি খরচ নেই বললেই চলে । নিজ বাড়ির গো খাদ্যের চাহিদা মিটিয়ে প্রতিদিন অথবা ৩/৪দিন পর জমি থেকে ঘাস কেটে বাজারে তুলে প্রতি বোঝা ঘাস ২৫/৩০ টাকায় বিক্রয় হয় । এতে জমিতে সার প্রয়োগ দিন মজুরের পাওনা, চাষ খরচ বাদ দিয়েও লাভের মুখ দেখা যায়। এদিকে এই লাভ জনক গো খাদ্য হিসেবে পরিচিত নেপিয়ার ঘাস চাষে এখন আর শুধু স্বপনের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই পাঁচবিবি উপজেলার অনেক কৃষকই ঝুকে পরেছে নেপিয়ার ঘাস চাষের উপর, স্থানীয় কৃষকদের মতে অন্যান্য মৌসুমী ফসলের চাইতে নেপিয়ার ঘাস চাষে ঝুট ঝামেলা কম, নেই পোকামাকড়ের আক্রমনের ভয়, প্রয়োগ করতে হয় না কোন কীটনাশক শুধু সময় মত সার প্রয়োগ, আগাছা নিরানী ও পানি সেচ দিলেই হয়। তাই এই নেপিয়ার ঘাস চাষ করে বর্তমানে অনেক প্রান্তিক কৃষক এখন স্বাবলম্বি পথে এগিয়ে যাচ্ছে, কৃষকের ধারনা আগামী কয়েক বছরের মধ্যে পাঁচবিবি উপজেলা ও তার আশপাশের এলাকা গুলোতে নেপিয়ার ঘাসের চাষ আরো বৃদ্ধি পাবে।