মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬

পাসপোর্ট পেতে হাইকোর্টে ডাকসুর ভিপি নুর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ডেল্টাটাইমস্, আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০১৯

/ আইন আদালত

কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর গেল চার মাস ধরে পাসপোর্টের জন্য বিভিন্ন কর্মকর্তার কাছে ঘুরছেন, তারপরও তার পাসপোর্ট মিলছে না। অবশেষে তিনি পাসপোর্টের বিষয়টি নিয়ে উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করেছেন। ডাকসু ভিপি নুরের পাসপোর্ট না পাওয়ার তথ্যটি নিশ্চিত করেন তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট মহসিন রশিদ।

নুরুল হক নুর জানান, চলতি বছরের জুলাই মাসে নেপালের ত্রিভুবন ইউনিভার্সিটিতে একটি সেমিনারে যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ ছিল তার। জরুরি ভিত্তিতে পাসপোর্ট পেতে ব্যাংকে নির্ধারিত ফিসহ এপ্রিল মাসে আগারগাঁও পাসপোর্ট অফিসে ফরম জমা দেন তিনি।

ভিপি নুর ধারণা করেছিলেন এক সপ্তাহ পরই পাসপোর্ট হাতে পেয়ে যাবেন। কিন্তু ৩০ দিন পরও তা না পেয়ে তিনি পাসপোর্ট অফিসের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বললে তারা কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি।

বিষয়টি নিয়ে নুর কথা বলেন পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) সঙ্গে। তিনি জানান, তার বিরুদ্ধে মামলা থাকায় পাসপোর্ট দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। মামলা রয়েছে এমন অনেক রাজনৈতিক নেতারা তাহলে কীভাবে পাসপোর্ট পান নুর তা জানতে চাইলে ডিজি বিষয়টি এড়িয়ে যান।

ফলে গত আগস্ট মাসের শুরুর দিকে তিনি হাইকোর্টে উচ্চ আদালতে আবেদন করেন। এ ব্যাপারে ডাকসু ভিপি নুর ক্ষোভ ব্যক্ত করে বলেন, ‘আমি এ দেশের নাগরিক। পাসপোর্ট পাওয়া আমার অধিকার। আমি ডাকসুর নির্বাচিত ভিপি, অথচ আমাকে পাসপোর্ট দেওয়া হচ্ছে না। আমি কিছুদিন ধরে অসুস্থ। ভারতে গিয়ে চিকিৎসা করানোর চিন্তা করছি। কিন্তু পাসপোর্টের অভাবে সেটাও সম্ভব হচ্ছে না।’

আমি মনে করি, এমনটা হওয়ার কারণ সরকারের স্বৈরতান্ত্রিক মনোভাব বলে মন্তব্য করে নুর আরও বলেন, ‘সরকারের উচ্চপর্যায়ের কনসার্নে আমার পাসপোর্ট দেওয়া হচ্ছে না। এটা কোনোভাবেই কাম্য হতে পারে না।'

এ বিষয়ে পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলে তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।