বৃহস্পতিবার ১ ডিসেম্বর ২০২২ ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

হোশি কুনিও হত্যা মামলা
জেএমবির ইছহাক আলীর খালাসের রায় স্থগিত
ডেল্টা টাইমস্ ডেস্ক:
প্রকাশ: রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৩:১৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

জেএমবির ইছহাক আলীর খালাসের রায় স্থগিত

জেএমবির ইছহাক আলীর খালাসের রায় স্থগিত

সাত বছর আগে জাপানি নাগরিক হোসিও কুনি হত্যা মামলায় নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) সদস্য ইছহাক আলীকে খালাসের রায়ের কার্যকারিতা স্থগিত করা হয়েছে। উচ্চ আদালতের রায় স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে রোববার এ আদেশ দেন আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম।  

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে শুনানি করেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মোহাম্মদ মোরসেদ। তার সঙ্গে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল সাইফুল আলম।

অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মোহাম্মদ মোরসেদ বলেন, “ইছহাক আলীর খালাসের রায়ের কার্যেকারিতা আট সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন। এ সময়ের মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষকে রায়ের বিরুদ্ধে লিভটু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) করতে বলা হয়েছে। ”

কি যুক্তিতে ইছহাক আলীর খালাসের রায় স্থগিত চেয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ, জানতে চাইলে রাষ্ট্রের এ আইন কর্মকর্তা বলেন, “হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে তার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রয়েছে। তাছাড়া দণ্ডিত অন্য আসামিদের জবানবন্দিতেও তার নাম উঠে এসেছে। হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনার সঙ্গে সে জড়িত ছিল। এসব যুক্তিতে তার খালাসের রায় স্থগিত চেয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ। ”

গত ২১ সেপ্টেম্বর হোসিও কুনি হত্যা মামলার আপিল ও ডেথ রেফারেন্সের রায় ঘোষণা করেন বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান ও বিচারপতি এস এম মাসুদ হোসেন দোলনের হাইকোর্ট বেঞ্চ। রায়ে জেএমবির চার জঙ্গির মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখলেও অপরাধ প্রমাণ করতে না পারায় ইছহাক আলীকে খালাস দেওয়া হয়। মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখা হয়- জেএমবির রংপুর অঞ্চলের কমান্ডার মাসুদ রানা ওরফে মামুন ওরফে মন্ত্রী, লিটন মিয়া ওরফে রফিক, সাখাওয়াত হোসেন ও পলাতক আহসান উল্লাহ আনসারী ওরফে বিপ্লবের।  

রায়ে মৃত্যুদণ্ডাদেশ প্রাপ্তদের ডেথ রেফারেন্স গ্রহন ও তাদের আপিল খারিজ করা হয়। আর ইছহাক আলীর আপিল গ্রহন করে তার ডেথ রেফারেন্স খারিজ করা হয় রায়ে।  

উল্লেখ্য, রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার সারাই ইউনিয়নের আলুটারি গ্রামে দুই একর জমি ইজারা নিয়ে কুনিও ঘাসের আবাদ করেছিলেন। মুন্নাফ নামের এক ব্যক্তির রিকশায় চড়ে প্রতিদিন সকালে সেই খামার দেখভাল করতে যেতেন তিনি। ২০১৫ সালের ৩ অক্টোবর সেখানে যাওয়ার পথেই তিনি খুন হন। ঢাকায় ইতালীয় নাগরিক চেজারে তাভেল্লা হতাকাণ্ডের পাঁচ দিনের মাথায় একই কায়দায় রংপুরে জাপানি নাগরিক হত্যাার ওই ঘটনা সে সময় আন্তর্জাতিক গণমাধ্যিমেও আলোড়ন তোলে।

ওই দিনই কাউনিয়া থানার তৎকালীন ওসি রেজাউল করিম বাদী হয়ে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। ঘটনার পরপর আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আইএস এর দায় স্বীকার করলেও সরকার তা নাকচ করে। প্রথম দিকে পুলিশের তদন্ত স্থনীয় এক বিএনপি নেতাকে ঘিরে আবর্তিত হলেও পরে তাতে জঙ্গিদের যোগাযোগ পান তদন্তকারীরা। প্রায় নয় মাস তদন্তের পর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কাউনিয়া থানার ওসি আব্দুল কাদের জিলানী ২০১৬ সালের ৩ জুলাই রংপুরের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিমের আদালতে অভিযোগপত্র দেন। সেখানে জেএমবির আট জঙ্গিকে আসামি করা হয়। অভিযোগপত্রে আট আসামির নাম থাকলেও তাদের দুজন আগেই পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, কুনিও হোশিকে লক্ষ্য করে পর পর তিনটি গুলি করেন জেএমবির আঞ্চলিক কমান্ডার মাসুদ রানা। মোটর সাইকেলে তারা তিনজন ছিলেন। গুলি করার পর মোটর সাইকেলে করে তারা পালিয়ে যান। ঘটনাস্থলেই মারা যান ৬৬ বছর বয়সী কুনিও।

হাকিম আদালত থেকে মামলাটি বিশেষ জজ আদালতে স্থানান্তরের পর ২০১৬ সালের ১৫ নভেম্বর বিচারক অভিযোগ গঠনের মধ্য  দিয়ে আসামিদের বিচার শুরু করে।   ২০১৭ সালের  ৪ জানুয়ারি সাক্ষ্যরগ্রহণ শুরুর পর রাষ্ট্রপক্ষে ৫৭ জনের মধ্যের ৫৫ জনের সাক্ষ্য শোনে আদালত। পরে ওই বছর ২৮ ফেব্রুয়ারি রায় দেন রংপুরের বিশেষ জজ নরেশচন্দ্র সরকার।

রায়ে জেএমবির এই পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার পাশাপাশি প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন বিচারক। এ রায়ের এক সপ্তাহের মাথায় আসামিদের মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের ডেথ রেফারেন্স আসে হাইকোর্টে। অন্যদিকে আসামিরাও খালাস চেয়ে আপিল করেন। সে সবের শুনানির পর রায় ঘোষণা করেন উচ্চ আদালত।


ডেল্টা টাইমস্/সিআর/এমই

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
  এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ  
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো. আমিনুর রহমান
প্রকাশক কর্তৃক ৩৭/২ জামান টাওয়ার (লেভেল ১৪), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত
এবং বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস ২১৯ ফকিরাপুল, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত।

ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো. আমিনুর রহমান
প্রকাশক কর্তৃক ৩৭/২ জামান টাওয়ার (লেভেল ১৪), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত
এবং বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস ২১৯ ফকিরাপুল, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত।
ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]